মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

অন্যান্য

কালের স্বাক্ষী বহনকারী এড়াবরাক নদীর তীরে গড়ে  উঠা নবীগঞ্জ  উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল হলো আউশাকন্দি  ইউনিয়ন ।ইউনিয়নের পাসাহে আছে শতবর্ষ পূর্বের হাট সৌয়দপুর বাজার পাশ দিয়ে বয়ে গেছে বড়াক নদী। আর নজরকেড়েছে ঐতিয্যবাহী ৩০০শত বছরের পূর্বের শ্রী শ্রী দুর্ল্লভ ঠাকুরের আখড়ায় কারুকার্য দ্বারা নির্মিত অনেকগুলি মন্দির রয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের দেবালয় এবং অনেকগুলি দেবতলী। এখানে রয়েছে বিখ্যাত আউলিয়া শাহা সদর উদ্দিন (রঃ)এর মাজার প্রতি বৎসর এখানে উরস মোবারক হয় অনেক ভক্ত বৃন্দের সমাগম হয় মাজারের মধ্যে আর রয়েছে শাহ রুমি মিছকিন শাহের আর অনেক গুলো ইউপির পাশে রয়েছে হাইওয়ে। পরিপূর্ন খনিজ সম্পদে যার উত্তোলনের জন্য কাজ চলছে। আউশকান্দি পাওয়ার পপ্ল্যান্ট এবং বনগাও বিদ্যুত প্লান্ত আছে স্ম্রিতি বিজরিত খেলাধুলার মাঠ ঐতিহ্যবাহি ঘোড়ার দৌড়ের মাঠ । প্রতিবছর বরাক নদীতে নোউকা বাইছ হয়। বর্তমান চেয়ারম্যান দিলাওর হোসেন দায়িত্ব গ্রহন করার পর ইউনিয়নে উন্নয়নের জোয়ার বয়ে চলেছে। তার ব্যাক্তিত্ব সততা নিষ্টা এবং কঠোর পরিশ্রমে উদারতা দিয়ে জয় করেছেন ইউনিয়নের প্রতিতি মানুশের মন . গ্রামের অলিগলি রাস্তা থেকে শুরু করে এমন কোন জায়গায় তার উন্নন্যনের স্পর্শ পড়েনি কেউ বলতে পারবেনা যেমন নিজ হাতে গড়ে তুলেছে ইউনিয়ন। আউশকান্দি ইউনিয়নের মধ্যে এক কথায় বলা যায় যে তিনি সব চেয়ারম্যান বৃন্দের মধ্যে অন্যতম। আউশকান্দি ইউনিয়নের রুফকার জার পরিশ্রমীর ফসল তথ্য প্রযুক্তির দিক দিয়র জেলার মধ্যে ১ম তাই বলা যায় আউশকান্দি একটি পুর্নাঙ্গ ডিজিটাল ইউনিয়ন। তথ্য সেবার মধ্যে ২০১৩ সালের শ্রেষ্ট চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি   মাজার কাল পরিক্রমায় আজ আউশকান্দিইউনিয়ন শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, খেলাধুলা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার নিজস্ব স্বকীয়তা আজও সমুজ্জ্বল।


Share with :

Facebook Twitter